মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

ঠাকুরগাঁও জেলার ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী...

ঠাকুরগাঁও জেলার ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী

ঠাকুরগাঁও জেলায় বসবাসকারী প্রধান প্রধান আদিবাসী সম্প্রদায়গুলো হচ্ছে সাঁওতাল, ওড়াওঁ, মুন্ডা, মুসহোর, রাজবংশী ইত্যাদি। জেলার পীরগঞ্জ, রাণীশংকৈল, হরিপুর, বালিয়াডাঙ্গী এবং ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় এসব আদিবাসী সম্প্রদায়গুলো বসবাস করে। ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার কৃষ্টপুর, মাতৃগাঁও, নারাডাঙ্গী, খোচাবাড়ী, সালন্দর, জগন্নাথপুর, পাঁচপীরডাঙ্গা, বালিয়া, মুজাবন্নী, ফাড়াবাড়ী, রুহিয়া, গোবিন্দনগর এবং গড়েয়া এলাকায় আদিবাসীরা বসবাস করে।

বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার খোঁচাবাড়ী, মাসলাডাঙ্গী ও কালমেঘ এলাকায় আদিবাসীরা বসবাস করে। এছাড়াও হরিপুর উপজেলার চৌরঙ্গী, পাতানডিহি, যাদুরাণী এলাকায় ও রাণীশংকৈল উপজেলার রাউতনগর, রাঙ্গাটুঙ্গী ও  রাণীশংকৈল পৌরসভা এলাকায় এবং পীরগঞ্জ উপজেলার জাবরহাট, করনাই, জগন্নাথপুর, মহেষপুর, রামপুর, ফুটকীবাড়ী এলাকায় আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষেরা বসবাস করে। ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলায় ৩৬৫টি সাঁওতাল পরিবার, পীরগঞ্জ উপজেলায় ৪০০টি, রাণীশংকৈল উপজেলায় ২০০টি, হরিপুর উপজেলায় ৪০টি এবং বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় ৩৫টি পরিবারসহ ঠাকুরগাঁও জেলায় মোট ১০৪০টি সাঁওতাল পরিবার বাস করে।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় ৩৪৫টি ওড়াওঁ পরিবার, পীরগঞ্জ উপজেলায় ৫০টি, রাণীশংকৈল উপজেলায় ৩০টি এবং বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় ০৬টি পরিবারসহ ঠাকুরগাঁও জেলায় মোট ৪৩১টি পরিবারে ওড়াওঁ সম্প্রদায়ের আদিবাসীরা বাস করে।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় ২২০টি মুসহোর পরিবার, পীরগঞ্জ উপজেলায় ১০২টি এবং হরিপুর উপজেলায় ১১টি পরিবারসহ জেলায় মোট ৩৩৩টি পরিবারে মুসহোর সম্প্রদায়ের আদিবাসীরা বাস করে।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় ০১টি মুন্ডা পরিবার, পীরগঞ্জ উপজেলায় ০৫টি এবং রাণীশংকৈল উপজেলায় ৬০টি পরিবারসহ জেলায় মোট ৬৬টি পরিবারে মুন্ডা সম্প্রদায়ের আদিবাসীরা বাস করে। এছাড়াও কিছু রাজবংশী সম্প্রদায়ের আদিবাসীও জেলায় বসবাস করে। রাজবংশী সম্প্রদায়ের মানুষেরা নিজেদেরকে আদিবাসী হিসেবে পরিচয় দিতে পছন্দ করে না। তারা হিন্দু সম্প্রদায়ের সাথে বিলীন হয়ে গেছে। তাই রাজবংশী সম্প্রদায়ের মানুষদের চিহ্নিত করা বেশ কঠিন। ঠাকুরগাঁও জেলায় বসবাসকারী আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষদের সংখ্যা প্রায় ৪০,০০০ জন।