মেনু নির্বাচন করুন

দর্শনীয় স্থান

ক্রমিক নাম কিভাবে যাওয়া যায় অবস্থান
মালদুয়ার দুর্গ
গড়গ্রাম দুর্গ
বাংলা গড়
গড় ভবানীপুর
গড়খাঁড়ি দুর্গ
কোরমখান গড়
সাপটি বুরুজ
বাসনাহার আদর্শ গ্রাম পুকুর উপজেলা থেকে বাসে অথবা ভ্যানে
পীর নাছিরউদ্দীন শাহ্ এর মাজার শরীফ। ১)রাণীশংকৈল উপজেলা হইতে উত্তরে হাইওয়ে রাস্তা ১০কি:মি: পরে নেকমরদ । রাণীশংকৈল হতে বাস, অটোরিক্সা যোগে নেকমরদ যাওয়া যায়। নেকমরদ চৌরাস্তার পূর্বে মাজার শরীফটির অবস্থান।
১০ রাজভিটা জাবরহাট বাজার হতে বাসে অথবা ভেনে অথবা যে কোন যানবাহানে অতি সহজে রাজভিটা যাওয়া যায় । অবস্থান হাটপাড়া ইউনিয়ন জাবরহাট ।
১১ শ্রী শ্রী গঙ্গা স্নান মন্দির: জাবরহাট বাজার হতে পায়ে হাটে অথবা ভেনে অথবা গাড়িতে করে যাওয়া যায় ।
১২ রনশিয়া চন্দ্রা ও দানাজপুর বর্ডার বিশ্ব রোডের পার্শ্বেই সুতরাং যে কোন পরিবহনে যাওয়া যায় ।জাবরহা ইউ.পি. ভবন হতে ৭ কি,মি পশ্চিমে রনশিয়া চন্দ্রা দানাজপুর বর্ডার অবস্থিত ।এই স্থানটি রনশিয়া গ্রামেই অবস্থিত ।
১৩ বলাকা উদ্যান বা কুমিল্লা হাড়ি বিনোদন কেন্দ্র ও পিকনিক স্পট

বলাকা উদ্যান বা কুমিল্লা হাড়ি ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা পরিষদের দক্ষিন-পূর্বে প্রায় ৬.০০ কি.মি. দূরে জগন্নাথপুর ইউনিয়নে অবস্থিত । সত্যপীর ব্রীজ বা বাস টার্মিনাল হতে এখানে বাস যোগে বা ব্যাটারী চালিত অটোরিক্সাযোগে বড় খোচা বাড়ী থেকে ০.৫ কিলো পর গৌরীপূর নামক স্থান থেকে দক্ষিন দিকে ০.৫ কিলো দুরত্ব গেলেই বলাকা উদ্যান বা কুমিল্লা হাড়ি যাওয়া যায় ।

১৪ ফানসিটি বিনোদন ও শিশু পার্ক

কিভাবে যাওয়া যায়:

পীরগঞ্জ উপজেলা শহরের প্রাণ কেন্দ্র পৌর অফিসের বিপরীতে পীরগঞ্জ__বীরগঞ্জ রাস্তার উত্তর পার্শ্বে (পুরাতন আরডিআরএস মোড়) বিনোদন পার্ক ফানসিটি অবস্থিত ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, বীরগঞ্জ, রাণীশংকৈল থেকে সরাসরি সড়ক পথে ফানসিটি যাওয়া যায়

১৫ ফতেপুর মসজিদ
১৬ ছোট বালিয়া জামে মসজিদ
১৭ হরিণমারীর ঐতিহ্যবাহী আমগাছ

মৈষাল ভাইদের মহিষের গাড়ি একসময়ের একমাত্র পথ চলার বাহন হলেও এখন আর দেখতে পাওয়া যায় না। ঢাকা থেকে সড়ক পথে বিলাসবহুল বাসযোগে সরাসরি বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় খুব সহজেই পৌঁছানো যায়। সড়ক পথে ঢাকা থেকে বালিয়াডাঙ্গীর দূরত্ব প্রায় ৪৫০ কি.মি। বিমানপথে সৈয়দপুরে পৌঁছে সড়ক পথে এবং রেলযোগে সৈয়দপুর অথবা দিনাজপুর পৌঁছে সড়কপথে বালিয়াডাঙ্গী নির্বিঘ্নে পৌঁছানো যায়। ঢাকা থেকে সরাসরি এশিয়ান হাইওয়ে বালিয়াডাঙ্গী পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় অধিকাংশ মূল সড়ক পাকা হলেও আনাচে কানাচে কাচা সড়ক পরিলক্ষিত হয়। বেলে মাটি হওয়ায় বর্ষার মৌসুমেও কাচা সড়ক চলাচলের উপযোগী থাকে। বালিয়াডাঙ্গী হয়ে ডাংগী বাজার দিয়ে/ লাহিড়ী বাজার দিয়ে/ চৌরাস্তা দিয়ে ভ্যান, বাস, মিশুক দিয়ে এই ২০০ বছরের ঐতিহ্যবাহী সূর্যপুরী আম গাছ পরিদর্শন করা যাবে।

সর্বমোট তথ্য: ৩৭



Share with :

Facebook Twitter